আন্তর্জাতিক

দিনে ৫ ঘণ্টা পানির নিচে কাটাতে পারে বাজাউ সম্প্রদায়

ডেস্ক   আন্তর্জাতিক

১২ জুন ২০২৪


| ছবি: সংগৃহীত

পানির নিচে কয়েক মিনিট শ্বাস ধরে রাখতে পারাটাই সাধারণ মানুষের জন্য কষ্টসাধ্য ব্যাপার। সেখানে পানির নিচে টানা ১০-১৩ মিনিট সাঁতার কাটতে পারে বাজাউ নামক এক উপজাতি। ক্ষেত্রবিশেষে তারা কয়েক মিনিট থেকে কয়েক ঘণ্টাও পানিতে শ্বাস ধরে রাখতে পারে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় প্রশান্ত ও ভারত মহাসাগর সংলগ্ন সমুদ্রে এদের বসবাস। ফিলিপাইনের দ্বীপে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা এই প্রজাতি থাকে বজরা বা হাউজবোটে। 

তারা ঘুরে বেড়াতে পারে পানির প্রায় ৭০ মিটার গভীরে। দিনে ৫-৮ ঘণ্টা নীল পানিতে মাছ শিকার করে তারা। সুদীর্ঘ ১ হাজার বছর ধরে চলছে তাদের এই চর্চা। এই প্রজাতির মানুষের ওপর এক গবেষণায় দেখা গেছে, তাদের প্লীহা সাধারণ মানুষের চেয়ে ৫০ শতাংশ বড়ো। ফলে রক্তে অস্বাভাবিক মাত্রার অক্সিজেন ধরে রাখতে পারে তাদের দেহ। আর এমন প্লীহার জন্য দায়ী এক ধরণের বিশেষ জিন। এই জিনের নাম পিডিই১০এ। এই প্রজাতির ৮৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তি দাবি করেছেন, তিনি পানির নিচে একসঙ্গে ১০ মিনিট নিজের শ্বাস ধরে রাখতে পারতেন। তবে এখন সর্বোচ্চ পাঁচ মিনিটের বেশি আর শ্বাস ধরে রাখতে পারেন না তিনি।

আরেক ব্যক্তি বলেন, আমার পূর্বপুরুষরা মাছ ধরতে যেতেন। সেসময় আমরাও তাদের সাথে সেখানে যেতাম। তাদের কাছ থেকেই ধীরে ধীরে আমরা এই পদ্ধতি রপ্ত করি। এটা আমাদের পূর্বপুরুষদের ঐতিহ্য। স্থানীয় এক শিশু জানায়, তার বাবা তাকে দীর্ঘক্ষণ পানির নিচে শ্বাস আটকে রাখার পদ্ধতি শিখিয়েছে। যা ই হয়ে যাক, তাদের শ্বাস আটকে রাখতে পারার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। যদিও তাদের অনেকেরই দাবি, সময়ের সাথে সাথে তাদের এসব ঐতিহ্য হারিয়ে যাচ্ছে। তারা জানান, পশ্চিমা সংস্কৃতির প্রভাবে এখানকার মানুষেরা তাদের জীবনযাত্রা পাল্টাচ্ছে। অনেকেই এরকম জীবনযাপন ছেড়ে দিচ্ছেন। পাশাপাশি প্লাস্টিকের দূষণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের শিকারও হচ্ছেন তারা।

81